ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৮ই জুন, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. এসএমই
  6. কর্পোরেট
  7. কৃষি
  8. খেলাধুলা
  9. খোলা কলাম
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. তারুণ্য
  13. নারী
  14. পরিবেশ
  15. পর্যটন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জীবনে সফল হতে চাইলে দরকার জেদ আর আত্মবিশ্বাস: এ মান্নান খান

Ashraful Karim
মে ১৮, ২০২৩ ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক
ছাত্র জীবন থেকেই মান্ননের টেকনোলজি নিয়ে পড়া ও কাজ করার ইচ্ছা ছিল। তিনি কল্পনাতেও সেটি স্থির করেছিলেন এবং তিনি তার স্বপ্নটি পরবর্তীতে পূরণ করেছেন। তিনি ঢাকা কলেজ থেকে পাশ করার পর সরকারের স্কলারশীপের মাধ্যমে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পূর্ণ করেন এবং পরে আরো ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর নব্বই দশকের প্রথম দিকে তিনি দেশে ফিরে আসেন এবং টেলিকমিউনিকেশন ও টেকনোলজিতে বিসনেস শুরু করেন। দেশের টেলিকমিউনিকেশন টেকনোলজিতে তিনি প্রথম দিকের ছিলেন। বাংলাদেশের নানা প্রজেক্টে কাজ করার জন্য তিনি নিজেকে অনেক ধন্য মনে করেন বিশেষ করে টেলিকমিউনিকেশন ইন্ট্রিগ্রেশন এবং টেকনোলজি ডেভলোপমেন্টে তিনি প্রথম থেকে ছিলেন। সেই সময় পৃথিবিতে যত বড় বড় গ্লোবাল প্লেয়ার ছিল তাদের সাথে কাজ করার তার অভিজ্ঞতা রয়েছে। তারা বাংলাদেশে নিজস্ব ডিজাইনে ইন্ট্রিগ্রেশন করতে পেরেছিলেন এবং সেটি তার ব্যবসায় অনেকটা সাফল্য এনে দিয়েছে। বাংলাদেশ সরকার যখন লাইসেন্স টেলিকম সেক্টর দিয়েছে ওগুলোতে তাকে কোন না কোন ভাবে লাইসেন্স দিয়েছে। নব্বই সালের শেষের দিকে তাকে পিএইচটিএন এর লাইসেন্স দিয়েছিল। ২০০৭ সালে ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন যখন প্রাইভেটাইজ হয় তখন সরকার তাদের লাইসেন্স দিয়েছে। লাইসেন্স পাওয়ার সাথে সাথে টিএনটি বর্তমানে বিটিসিএল এর সাথে কম্পিট করে তার অর্ধেক করতে পেরেছিল। তখন ইন্টারনেট পেনিট্রেশন বাংলাদেশে বেড়ে গিয়েছিল। আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর,সরকারের একটি স্লোগান ছিল ডিজিটাল বাংলাদেশ তৈরি করা। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে এই ইন্টারনেট টেকনোলজি খুব সাকসেসফুলী কাজ করছে। তারা ব্যান্ড উইথ এর দাম একশ ভাগের এক ভাগ করতে সক্ষম হয়েছেন। যা অনেক ধরনের ডিজিটাল কাজে সহায়তা করেছেন। পরবর্তীতে ২০১০ সালে তারা নিজস্ব ক্লাউড ইনফ্রাস্টাচার তৈরিকরেন। যেখানে সরকার ও বেসরকারের অনেক কনটেন্ট করা। এটাতে বাংলাদেশের সবচেয়ে মেজরিটি কনটেন্ট হোস্ট করা আছে। তার ব্যবসায় আরো বেশি সফলতা আসে,তারা যখন ফাইনানশিয়াল সেক্টরে ঢুকেছে ২০১২-১৩ সালে। তারা ব্যাংক তৈরি করেছেন। এ টি মধ্যবর্তী ব্যাংকের শেয়ার হোল্ডার হিসেবে কাজ করে।যা বাংলাদেশে বর্তমানে সফলতার সাথে চলছে। উপস্থাপক তাকে প্রশ্ন করেন যে ডিজিটাল বাংলাদেশের ৩৮% সরকার করতে পেরেছেন এবং বর্তমানে এটি চলমান আছে তারা যে ইন্টারনেট প্রোভাইট করছেন প্রত্যন্ত অঞ্চলে আমাদের অবস্থান কতটুকু? প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে কতগুলো জিনিস কাজ করছে, এর মধ্যে একটি হচ্ছে ইন্টারনেট পেনিট্রেশন। তারা ২০০৭ সাল ও পরবর্তী ২০০৯ সালে তারা সরকারের সাথে কাজ করেছিল বিদেশের কমিউনিকেশন সহজ করা জন্য। আগে দেখা যেত গ্রামীনের কল রবিতে যেত না,রবির কল গ্রামীনে আসত না। এই সমস্যার সমাধান তারা করেছেন। তারা গ্রামে গঞ্জে একদম ইউনিয়ন পর্যায় তাদের কানেকটিভিটি পৌছে দিয়েছেন। তাদের প্রতিষ্ঠান চার ধরনের কাজ করছেন। ক. টেলিকমিউনিকেশন টেকনোলজি, খ.ব্যাংকিং এবং ফাইন্যান্স, গ. সোলার প্যানেলের মাধ্যমে পাওয়ার জেনারেট (গ্রিন পাওয়ার) ও ঘ.ইলেকট্রিক যানবাহন নির্মান। তারা বর্তমানে ইলেকট্রিক গাড়ি তৈরি এবং গাড়িতে ব্যবহৃত লিথিয়াম ব্যাটারি, চার্জার ও মোটর কন্ট্রোলার নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। একশ একর জায়গার উপর তাদের এই প্রজেক্ট। তারা গার্মেন্টস লেভেল ও তাদের থেকে নিচের এবং গ্রামের মধ্যবিত্তদের কথা মাথায় রেখে এসব গাড়ি ডিজাইন করছেন। এসব গাড়ি ইলেকট্রিক হওয়ায় জ্বালানি, মবিল কিছুই লাগবে না বরং অনেক সুলভ মূল্যে এগুলো পাওয়া যাবে এবং দূর্ঘটনাতে ক্ষতি কম হবে ও রেজিস্ট্রেশনও পাওয়া যাবে। চার বছর আগে তিনি এই কাজটি শুরু করেন কিন্তু কোভিট-১৯ এর জন্য অনেক বাধা প্রাপ্ত হন তারপরও তারা এখন সমাপ্তির দিকে। প্রথম বছরে তারা ৩০হাজার ও পরের বছরে ৬০ হাজার চারচাকা গাড়ি তৈরি করবে। ক্রেতা ১০ লক্ষ টাকার গাড়ি সম্পূর্ণ টাকা একবারে না দিয়ে ২-৩ লক্ষ টাকায় সেটিনিতে পারবেন এবং প্রতিমাসে ১০-১২ হাজার করে টাকা দিয়েবাকিটা শোধ করতে পারবেন। পাঁচ বছরের মধ্যে দেশের সবগুলো জেলা ও সবগুলো উপজেলায় তারা তাদেরএসব শপ বা শোরুম দিবেন।এতে করে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান হবে। তার সব ব্যবসায় তিনি নতুন নতুন চিন্তার সম্বনয় ঘটিয়েছে। তারা এখন ই-সাইন নিয়ে কাজ করছে। যা ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রবর্তনে কয়েক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে। বাধা বিপত্তি তার সবসময় ছিল কিন্তু তিনি তার সাহস দিয়ে সব কাজগুলোকে তিনি এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরির লক্ষে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
%d bloggers like this: