ঢাকারবিবার , ২রা এপ্রিল, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. এসএমই
  6. কর্পোরেট
  7. কৃষি
  8. খেলাধুলা
  9. খোলা কলাম
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. তারুণ্য
  13. নারী
  14. পরিবেশ
  15. পর্যটন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পাইকগাছায় তাজমিরাকে হত্যাকান্ড;

anin
ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৩ ৭:০২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

পাইকগাছায় তাজমিরাকে হত্যাকান্ড;

প্রতিপক্ষদের ফাঁসাতে ভাসুর কতৃক শ্বাসরোধ করে  হত্যা; স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

পাইকগাছা(খুলনা) প্রতিনিধি।। 

পাইকগাছার আলোচিত গৃহবধু তাজমিরা হত্যা রহস্য উদ্ঘাটন করেছে থানা পুলিশ। ৫ দিনের মধ্যে আলোচিত গৃহবধু তাজমিরা হত্যা রহস্য উদ্ঘাটন করতে সক্ষম হয়েছেন থানার ওসি মোঃ জিয়াউর রহমান।জমি নিয়ে বিরোধে পতিপক্ষকে ফাসাতে ভাসুর শহীদুল্লাহ পরিকল্পনায় তাজমিরাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়।হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ এ পর্যন্ত  মোট ৩ জনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় শহিদুল মোড়ল (৪৫) ওরফে মাস্টারকে আটক করা হয়েছে। শনিবার সুন্দরবন পালানোর সময় উপজেলার সীমান্তবর্তী সুন্দরবন সংলগ্ন কুমখালী এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক শহিদুল মোড়ল আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছে।  গত ৩১ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকালে ধান ক্ষেতের পাশ থেকে উপজেলার ধামরাইল গ্রামের মীর ওবায়দুল্লাহ’র স্ত্রী গৃহবধু তাজমিরা বেগম (৩৮) এর গলাকাটা মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। জায়গা জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে তাকে হত্যা করা হয়। থানা পুলিশ আটককৃত আসামীদের জবানবন্দি ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়, গৃহবধু তাজমিরার স্বামী ওবায়দুল্লাহ ও ভাসুর শহীদুল্লাহ মীরের সাথে পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে তাদের মৃত ভাই সাংবাদিক মামুনের পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। মামুনের পরিবার খুলনাতে বসবাস করেন। তাদের প্রাপ্য সম্পত্তির কিছু অংশ এলাকার জনৈক ব্যক্তিদের নিকট বিক্রি করে দিলে দখল বুঝে না পাওয়ায় এ নিয়ে আদালতে মামলা হয়। পরবর্তীতে এলাকার  গুলজারসহ মধ্যস্থকারী ব্যক্তিরা বিষয়টি নিরসনের উদ্যোগ নিলে জায়গা জমি সংক্রান্ত এ বিরোধ কয়েকটি পক্ষ সংশ্লিষ্ট হয়ে যায়। এলাকার দুটি পক্ষের একটি পক্ষ গৃহবধু তাজমিরাদের পক্ষ নেয়। অপর একটি পক্ষ সাংবাদিক মামুনের মেয়ে মৌসুমীদের পক্ষ নেয়। তাজমিরাদের যারা পক্ষ  নিয়ে তারা তাজমিরাকে ব্যবহার করে মৌসুমীদের পক্ষ নেওয়া মধ্যস্থাকারীদের ফাসানো জন্য ষড়যন্ত্র এবং চক্রান্ত করে। চক্রান্তকারীরা পরিকল্পনা নেয় মৌসুমী ও তাদের লোকজন যেদিন এলাকায় আসবে সেদিন তাদেরকে ফাঁসানো হবে। জমি বুঝে নিতে মৌসুমী ও তার লোকজন ৩০ জানুয়ারি এলাকায় এসে রাত্রী যাপন করে। এদিন সন্ধ্যায় গৃহবধু তাজমিরা সহ ষড়যন্ত্রকারীরা তাজমিরার ভাসুর শহীদুল্লাহ’র চায়ের দোকানে গোপনে বৈঠক করে। বৈঠকে ষড়যন্ত্র সফল হলে কেউ জমিতে ভাগ বসাতে পারবে না বলে গৃহবধু তাজমিরাকে আশ^স্থ করে। এতে তাজমিরা খুশি হয় তাদের উপর। কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস! সেই ষড়যন্ত্রের শিকার হতে হয় তাজমিরাকে। রাত ১২টার দিকে ভাসুর শহীদুল্লাহ তাজমিরাকে বসতবাড়ী থেকে ডেকে তার চায়ের দোকানে নিয়ে যায়। এরপর তাজমিরাকে চায়ের দোকানে নিয়ে দরজ বন্দ করে ভাসুর শহীদুল্লাহ সহ ৬জন চক্রান্তকারী তাজমিরার মুখে গামছা দিয়ে  শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার আধা ঘন্টা পর মৃতদেহ এলাকার  সালেক মীরের ধান ক্ষেতের পাশে নিয়ে যায়। এখানে খেঁজুর গাছের তলায় রেখে ছুরি দিয়ে মৃতের গলা কেটে ক্ষতবিক্ষত করে। এরপর মৃতদেহ ধান ক্ষেতের পাশে রেখে দেয়। পরে সকালে এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে থানা পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় মৃতের ভাই আলমগীর বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামী করে থানায় হত্যা মামলা করে। যার নং- ৩২, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩।  ওসি জিয়াউর রহমান জানান, এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ৩জনকে আটক করা হয়েছে। প্রথমে গৃহবধুর ভাসুর শহীদুল্লাহ মীর, পরে মফিজুল গাজী এবং সর্বশেষ শহিদুল মোড়ল ওরফে মাস্টারকে আটক করা হয়েছে। ওসি বলেন, শহিদুল সুন্দরবনে পালিয়ে যাচ্ছিল। বিষয়টি জানতে পেরে সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকার ট্রলার থেকে তাকে আটক করা হয়। আটকের পর তার কাছ থেকে হত্যা ঘটনার মূল রহস্য উদ্ঘাটন হয়েছে। কি ভাবে পরিকল্পনা করা হয়, কিভাবে হত্যা করা হয়, কারা হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সে বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে আটক শহিদুল মাস্টার। সে শনিবার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছে। আটক অপর দুই আসামীর রিমান্ড আবেদন সোমবার শুনানীর দিন ধার্য্য রয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত যারা পলাতক রয়েছে তাদেরকে খুব দ্রুত গ্রেফতার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে থানা পুলিশের এ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

পাইকগাছায় ৪ দলীয় পৌরকাপ ভলিবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি।। 

পাইকগাছা পৌরসভার ২৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ৪ দলীয় পৌরকাপ

ভলিবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার টাউন মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে

দিবারাত্রী এ খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলায় সরল চলন্তিকা যুব সংঘকে ৩-১ ব্যবধানে পরাজিত করে কয়রার আটরা যুব সংঘ ভলিবল টিম চ্যাম্পিয়ন হয়। খেলায় আটরা যুব সংঘের সিজান সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়। খেলা শেষে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন কমিটির আহবায়ক কাউন্সিলর রবি শংকর মন্ডলের সভাপতিত্বে পুরস্কার

বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, প্যানেল মেয়র শেখ মাহাবুবর রহমান

রনজু। উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার, পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা লালু সরদার, মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুজন কুমার সরকার, এসাআই মোস্তাফিজুর রহমান, সুকান্ত, সাবেক কাউন্সিলর এসএমএসএম শেখ আনিছুর রহমান মুক্ত, কাউন্সিলর এসএম তৈয়েবুর রহমান, কবিতা দাশ,

আলাউদ্দীন গাজী, অহেদ আলী গাজী, আব্দুল গফফার মোড়ল, কামাল আহমেদ সেলিম নেওয়াজ, ইমরান সরদার, এসএম ইমদাদুল হক, আসমা আহমেদ, রাফেজা খানম ও সুরঞ্জন চক্রবর্তী। উল্লেখ্য, ১৯৯৭ সালের পহেলা ফেব্রুয়ারি পাইকগাছা পৌরসভা

প্রতিষ্ঠিত হয়।

পাইকগাছায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা দুরজাহান গাজীর দাফন সম্পন্ন

পাইকগাছা ( খুলনা )  প্রতিনিধি।।

খুলনার পাইকগাছায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অব অনার ও জানাযা শেষে চাঁদখালী ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা  দুরজাহান গাজী’র দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

 শনিবার সকাল ১০টায় কাটাখালী কৃষ্ণনগর মসজিদ ঈদগাহ ময়দানে জানাযা পূর্বে মরহুমের কফিনে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুস্পমাল্য অর্পন ও গার্ড অব  অনার প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাহী  অফিসার মমতাজ বেগম। 

এসময়ে জানাযায় অংশ গ্রহণ করেন এবং উপস্থিত ছিলেন, খুলনা ৬ (পাইকগাছা -কয়রা)’র সংসদ সদস্য মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু, উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার ইকবাল মন্টু, ওসি মোঃ জিয়াউর রহমান, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ শাহাদাত হোসেন,  বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনিছুর রহমান, জামির হোসেন, মোকছে আলী, আমিনুল ইসলাম, আব্দুর রশিদ, ফয়জুল বারী, ভোগিরথী গোলদার, মাস্টার আমির আলী, সোহরাব গোলদার  আব্দুল মাজেদ সরদার, ইউপি চেয়ারম্যান শাহাজাদা আবু ইলিয়াস, মুক্তিযোদ্ধা’র পরিবারের সদস্য সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

উল্লেখ্য দীর্ঘদিন অসুস্থ্যতায় বাধর্ক্যজনিত কারণে শুক্রবার রাতে খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

পাইকগাছা প্রেসক্লাবের সভাপতি’র নামে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি।। 

খুলনার পাইকগাছা প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট  এফএমএ রাজ্জাকের নামে দায়েরকৃত মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

রোববার সকালে উপজেলা পরিষদের সামনে প্রধান সড়কে প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি তৃপ্তি রঞ্জন সেনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এন ইসলাম সাগরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, সাবেক সভাপতি মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীর, সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক এম মোসলেম উদ্দীন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ এসএম বাবুল আক্তার, দপ্তর সম্পাদক স্নেহেন্দু বিকাশ, সাবেক সাধারণ 

সম্পাদক এসএম আলাউদ্দিন সোহাগ, সাংবাদিক বি সরকার, রবিউল ইসলাম, 

ইমদাদুল হক, এমআর মন্টু, আলাউদ্দীন রাজা, জিএ রশীদ, নজরুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক বুলি, কৃষ্ণ রায়, আবুল হাশেম, অমল মন্ডল, পূর্ণ চন্দ্র মন্ডল ও বদিয়ার রহমান। 

মানববন্ধন কর্মসূচির মাধ্যমে সাংবাদিকরা অবিলম্বে এফএমএ রাজ্জাক ও তার পরিবারের নামে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
%d bloggers like this: